1. info@www.khulnarkhobor.com : khulnarkhobor :
মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি/বিজ্ঞাপন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com    বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৪৭,আপার যশোর রোড (সঙ্গীতা হোটেল ভবন) নীচতলা,খুলনা-৯১০০।ফোন:০১৭১০-২৪০৭৮৫,০১৭২১-৪২৮১৩৫। মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:- ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
খুলনার খবর
নড়াইল সদরে দ্বিমুখী ও লোহাগড়া উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে লড়াই হবে ত্রিমুখী শার্শায় শান্তি পূর্ণ নির্বাচন ও ভোটার উপস্থিতি বাড়াতে প্রশাসনের প্রচার মাইক বিশ্ব বিখ্যাত উপন্যাসিক,সাহিত্য গবেষক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হোসেনউদ্দীন হোসেন আর নেই ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি’র মৃত্যুতে এবি পার্টির শোক  রামপাল ওয়ার্ল্ড ভিশনের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত আতঙ্কিত এক জনপদের নাম লোহাগড়া  মোরেলগঞ্জে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হারভেস্টার মেশিন বিতরণ করলেন এমপি বদিউজ্জামান সোহাগ কেশবপুরের আলতাপোল মহাশ্মশান পরিচালনা কমিটি গঠন  নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ ভিত্তিহীন-মাশরাফী রামপালে গাঁজাসহ দুই মাদক কারবারি গ্রেফতার মহাকবি মাইকেল মধুসূদন দত্ত ক্রিকেট টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত লোহাগড়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে ২ প্রার্থীকে জরিমানা  ২০ মে কেশবপুরের সীমান্তবর্তী চুকনগর গণহত্যা দিবস বাগেরহাটে গলায় ফাঁস দিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যা সংসদ ভবন এলাকায় ছাত্রলীগ কর্মী খুন মোংলায় আচরণবিধি লঙ্ঘনে তিন প্রার্থীকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের জরিমানা বটিয়াঘাটা উপজেলায় পানিতে ডুবে নবম শ্রেণীর ছাত্রের মৃত্যু কেশবপুরে কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী আলমগীরের স্ত্রী ফেনসিডিল ও ইয়াবাসহ গ্রেফতার  ঢাকার ধোলাইখালে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট  গাজীরহাটে সাংবাদিকের বাড়ি থেকে নগদ টাকা ও স্বর্নালঙ্কার চুরি

খুলনার পাইকগাছায় জলমহলে লবণ পানি ইজারাদার ও এলাকাবাসীর মধ্যে উত্তেজনা

  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২২
  • ৪৮৫ বার শেয়ার হয়েছে

শেখ খায়রুল ইসলাম,পাইকগাছা প্রতিনিধি // খুলনার পাইকগাছার মিনহাজ নদীর ২৫১ একর বদ্ধ জলমহলে সুইজ গেট দিয়ে লবণ পানি উঠানোকে কেন্দ্র করে ইজারাদার ও এলাকাবাসী মুখোমুখি অবস্থানে। দুপুরে ইজারাদার লবণ পানি উঠাতে গেলে এলাকাবাসী সেটি বন্ধ করে দেয়। এ নিয়ে দুটি পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দিলে পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ সহকারী জনাব রাজু হাওলাদার সরেজমিনে গিয়ে পানি উঠানো বন্ধ করেন। লবণ পানি উঠাতে গেলে বড় ধরণের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকাবাসী।

জানা যায় ,পাইকগাছা ও কয়রা উপজেলার কয়েকটি ইউনিয়নের মধ্যদিয়ে প্রবাহিত ২৫১ একরের মিনহাজ নদীর বদ্ধ জলমহল। যার দৈর্ঘ্য প্রায় ১৭ কিলোমিটার। এ নদী দিয়ে দুই উপজেলার ৪৬ মৌজার প্রায় শতাধিক গ্রামের পানি নিস্কাশন হয়। এ বদ্ধ জল মহলটি সরকারের নিকট থেকে ইজারা গ্রহণ করেন বন্ধন মৎসজীবী সমবায় সমিতি। কানাখালী গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি বলেন, ইজারাদার কর্তিক অপরিকল্পিত ভাবে জোয়ার পানি ওঠানোর কারণে নদীর মুখে পলি পড়ে ভরাট হয়ে গেছে। ফলে বৃষ্টির মৌসুমে পানি নিস্কাসন বাধাগ্রস্ত ফসলহীন হাজার হাজার বিঘা জমি। হাজার হাজার কৃষকরা ক্ষতি পুষিয়ে নিতে নদীর মিষ্টি পানি ব্যবহার করে শীত ও গ্রীষ্ম মৌসুমে তরমুজসহ বিভিন্ন সবজি উৎপাদন করছে। মিনহাজ চকের বসিন্দা মনিরুজ্জামান বলেন,মিনহাজ নদীর মুখ ভরাট হওয়ার কারণে পানি নিষ্কাশন না হওয়ায় ধানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গোয়ালবাড়িয়া চকের বিজন মন্ডল বলেন, নদীটি যাহারা ইজারা নিয়েছে তারা জোয়ার উঠানোর কারণে পলি জমে নদীর মুখে প্রায় ২০০ বিঘা নদী ভরাট হয়ে গেছে। শিক্ষক গোবিন্দ মন্ডল বলেন, লস্কর, চাঁদখালী, গড়ইখালী ও কয়রা উপজেলার আমাদী ইউনিয়নের শতাধিক গ্রামের বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন হয় এ নদী দিয়ে। গড়ইখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম কেরু বলেন, আমি লবণ পানি উঠানোর পক্ষে নই। আমি মিষ্টি পানি জন্য আনন্দোলন সংগ্রাম করছি। ইউনিয়নের কৃষক ও কৃষিকে বাঁচাতে মিনহাজ নদীতে লবণ পানি উঠানোর বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছি। চাঁদখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহজাদা আবু ইলিয়াস বলেন, কপোতাক্ষ নদ ভরাট হওয়ার কারণে আমার ইউনিয়নের পানি সরানোর একমাত্র পথ মিনহাজ নদী। এ নদীর মিষ্টি পানি দিয়ে কৃষকরা ফসল ফলায়।যদি নদীতে লবণ পানি উঠানো হয় তাহলে ফসল নষ্ট হবে।

লস্কর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কে এম আরিফুজ্জামান তুহিন বলেন, বদ্ধ জল মহলটির মুখ পলি পড়ে ভরাট হওয়ার কারণে এলাকার পানি নিষ্কাশন হয়না। বর্ষা মৌসুমে আমার ইউনিয়ন প্লাবিত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়-ক্ষতি হয়। ইতিমধ্যে ইউনিয়ন পরিষদের সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কর্মসৃজন প্রকল্পের লোক দিয়ে ভরাট হওয়া অংশ খননের প্রস্তুতি চলছে। এমন সময় ইজারাদার স্লাইজ গেট দিয়ে জোয়ারের লবণ পানি উঠাতে গেলে এলাকাবাসী বাঁধা দেয়। ইজারা গ্রহীতা বন্ধন মৎসজীবী সমবায় সমিতির সম্পাদক বিধান রায় জানান, নদী থেকে সেলো মেশিন দিয়ে পানি তোলার কারণে নদীতে পানি কমে গেছে। সে কারণে আমরা জোয়ারের পানি উঠানোর জন্য পানি উন্নয়ন বোর্ডের কাছে দাবী করেছিলাম।পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী রাজু হাওলাদার বলেন, বদ্ধ জলমহলটি ইজারা নিয়েছেন বদ্ধ ভাবে মৎস্য চাষের জন্য।

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:-  ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।