1. info@www.khulnarkhobor.com : admin :
  2. khulnarkhobor24@gmail.com : Khulnar Khobor : Khulnar Khobor
বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি/বিজ্ঞাপন
★খুলনার খবরে আপনাদের স্বাগতম★এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি★আপনার প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের জন্য যোগাযোগ করুন।০১৯২৫-৫৩৬৩৪০★আপনাদের কাছে কোন তথ্য থাকলে আমাদের জানাতে পারেন।যোগাযোগের ঠিকানা, ৪৭,আপার যশোর রোড, খুলনা।ই-মেইল: khulnarkhobor24@gmail.com।মোবাঃ ০১৭২১-৪২৮১৩৫, ০১৭১০-২৪০৭৮৫।★আমাদের  প্রতিনিধি হতে চাইলে যোগাযোগ করুন : ০১৯২৫-৫৩৬৩৪০/০১৭১০-২৪০৭৮৫।★আকাশ ২৬টি HD চ্যানেলসহ মোট ৯০টি চ্যানেল মাত্র টাকা ৩০০/মাস "আকাশ" কিনতে যোগাযোগ করুন।৪৭,আপার যশোর রোড,খুলনা।মোবাঃ০১৭২১-৪২৮১৩৫,০১৯২৫-৫৩৬৩৪০,০১৭১০-২৪০৭৮৫,০১৯৭০-২৪০৭৮৫।লুকাস,  ভলভো,  হ্যামকো,  সাইফপাওয়ার ব্যাটারিসহ সকল প্রকার ব্যাটারি পাইকারি ও খুচরা মুল্যে পাওয়া যায়।সকল প্রকার এসি ও সোলার প্যানেল পাওয়া যায়।এম,ইব্রাহিম এন্ড কোং,৪৬ আপার যশোর রোড, খুলনা।মোবাইল: ০১৭১০-২৪০৭৮৫/০১৯৭০-২৪০৭৮৫★রিক্সা ও ভ্যানের ১নং চায়না ব্যাটারির একমাত্র পাইকারি বিক্রয় প্রতিষ্ঠান এম,ইব্রাহিম এন্ড সন্স।৪৭,আপার যশোর রোড,(সঙ্গিতার মোড়) খুলনা।মোবাঃ ০১৭১০-২৪০৭৮৫/ ০১৯৭০-২৪০৭৮৫/০১৭২১-৪২৮১৩৫।

কেশবপুরের আওতাধীন নরনিয়া স্লুইচ গেটের সম্মুখের পলি অপসারণ স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে শুরু

  • প্রকাশিত : বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট, ২০২২
  • ৭৩ বার পড়া হয়েছে

পরেশ দেবনাথ,কেশবপুর,যশোর // যশোরের কেশবপুরের আওতাধীন নরনিয়া স্লুইচ গেটের সম্মুখের পলি অপসারণ কাজ অবশেষে স্বেচ্ছাশ্রমের ভিত্তিতে শুরু হয়েছে। চিহ্নিত জলাবদ্ধ এলাকার কেশবপুর,তালা ও ডুমুরিয়া ৩ উপজেলার ২৭ বিলের পানি নিষ্কাশন একটি মাত্র পথ।

এই গেট এখন এলাকার মানুষের যেন মরণ ফাঁদ। দীর্ঘদিন ধরে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দেখ ভালের অভাবে নরনিয়া স্লুইচ গেটের সম্মুখের ৪টি কপাট পলিতে ভরাট হয়ে যায়। এ বছর অনাবৃষ্টির কারণে ভদ্রা নদীর সংযোগ নরনিয়া হতে তেঘরি খাল-বিলে ও পুকুরে পানির অভাব দেখা দিয়েছে। ফলে পাট জাগ দেওয়া নিয়ে কৃষকরা বিপাকে পড়েছে প্রান্তিক পাট চাষীরা। এ পর্যায়ে কেশবপুর উপজেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড ও প্রশাসনের নজরে আসে। প্রশাসন এলাকার কৃষকদের সুবিধার্থে পানি উন্নয়ন বোর্ডের আওতায় নরিনয়া স্লুইচ গেটের সম্মুখ ভাগ ও ভদ্রা নদীর পলি অপসারণ করে জোয়ার ভাটার জোয়ার ভাটার মাধ্যমে এলাকার কৃষক যাতে পাট জাগ দিতে পারে সেই পদক্ষেপ গ্রহণ করেন।

জানা যায়,গত মঙ্গলবার কেশবপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার এম এম আরাফাত হোসেনআরাফাত হোসেন ও উপজেলার ৪ নম্বর বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন সরেজমিন নরনিয়া স্লুইচ গেটটি পরিদর্শন করেন এবং এলাকার পাট চাষীদের সাথে মতামতের ভিত্তিতে পলি অপসারণ ও গেট দিয়ে জোয়ার ভাটা চালু করার ব্যবস্থা নেন। সরেজমিন দেখা যায়, বুধবার (১০ আগষ্ট) সকালে তড়িৎ গতিতে বাউশালা, হিজেলডাঙ্গা, শিরাশুনি, ঘোষড়া, বাদুড়িয়া, ভবানীপুর গ্রামের শতশত কৃষক গেটে পলি অপসারণের কাজ করছে। বাদুড়িয়া গ্রামের কৃষক ফারুখ জানান, আমাদের খাল-বিলে পানি নেই। সে কারণে এই গেট দিয়ে যদি পানি ওঠা নামা করে তাতে এলাকার কৃষকরা পাট জাগ দিতে পারবে। শিরাশুনি গ্রামের আবুল কালাম মোড়ল জানান, আমরা জলাবদ্ধ এলাকার লোকজনের খবর দিয়েছি। আগামীকাল আরও লোকজন আসবে। এ বছর আমরা দিশেহারা হয়ে পড়েছি। কেশবপুর-চুকনগরের সীমান্তবর্তী এলাকা ভদ্রা নদীর সংযোর নরনিয়া কাটাখাল স্লুইচ গেটটি দক্ষিণ অঞ্চলের সংযোগ খাল। এই খাল দিয়ে ৩টি উপজেলার ২৭টি গ্রামের পানি নিষ্কাশন হয়ে থাকে। কিন্তু নরনিয়া স্লুইচ গেটের ৪টি কপাটের সম্মুখ ভাগ ভরাট হওয়ার ফলে পানি উঠানামা বন্ধ রয়েছে। অনাবৃষ্টির কারণে কৃষকদের সৃষ্ট সমস্যা ও আর্থিক অবস্থার বিবেচনা করে কেশবপুর উপজেলা প্রশাসন যুগান্তকারী পদক্ষেপ নিয়েছে। এতে করে অত্র এলাকার হাজার হাজার কৃষক মহা খুশি এবং গেট দিয়ে জোয়ার ভাটার কারণে পাট জাগ ও আমন ধান রোপণ করতে পারবে। এ ব্যাপারে কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এম,এম, আরাফাত হোসেন জনগণকে বলেন, কেশবপুরের আওতাধীন নরনিয়া স্লুইচ গেটের পলি অপসারণ করলে আপনারা পাটজাগসহ বোরোধান রোপন করতে পারবেন।

বিদ্যানন্দকাটি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন জানান, নদীতে এখন মিষ্টি পানি সে কারণে গেট দিয়ে পানি জোয়ার ভাটা করলে কৃষকের পাট জাগ ও আমন ধান রোপণ করতে পারবে। জলাবদ্ধ এলাকার মানুষের একটি মাত্র ফসল ইরি-বোরো। পাটের উপযুক্ত মূল্য থাকায় এ বছর খরার কারণে কৃষকরা পাট চাষে আগ্রহী হয়ে বিলের নীচু জমিতে পাট চাষ করেছে। পাটের ফলনও খুব ভালো। এখন পানির অভাবে কৃষকরা পাট জাগ দিতে পারছে না। এই অবস্থা থাকলে কৃষকরা দারুণ আর্থিক ক্ষতি সম্মুখীন হবে বিবেচনা করে এলাকার জনগণ ও প্রশাসনের সহযোগীতায় স্বেচ্ছাশ্রমের মাধ্যমে মরণ ফাঁদ নরনিয়া স্লুইচ গেটের সম্মুখে পলি ভরাট অপসারণ করছে। এলাকার মানুষ এবার স্বস্থিতে পাট জাগ দিতে পারবে বলে তারা মনে করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.comজাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।নিবন্ধন নাম্বার:...।যেকোন তথ্য পাঠাতে আমাদের কাছে মেইল করুন।আপনাদের চারপাশে ঘটে যাওয়া সকল ঘটনার খবর আমাদের জানাতে পারেন।ই-মেইল: khulnarkhobor24@gmail.com।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।