1. info@www.khulnarkhobor.com : khulnarkhobor :
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১২:০১ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি/বিজ্ঞাপন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com    বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৪৭,আপার যশোর রোড (সঙ্গীতা হোটেল ভবন) নীচতলা,খুলনা-৯১০০।ফোন:০১৭১০-২৪০৭৮৫,০১৭২১-৪২৮১৩৫। মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:- ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
খুলনার খবর
কোরবানির পশু হাট শেষ মুহূর্তে জমে উঠলেও-বিপাকে খামারিরা পাইকগাছায় ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কেশবপুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টায় গ্রেফতার-১ ঝিকরগাছায় গরিবের ঈদের চাউল উধাও:বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ নড়াইলে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় কিশোর নিহত শার্শায় এবার ঈদের কেনাকাটা জমে ওঠেনি পবিত্র হজ্জ আজ নড়াইলে ঘেরের পাড় থেকে কিশোরের মরদেহ উদ্ধার এবি পার্টিতে নবাগতদের সংবর্ধনা পাইকগাছায় কপোতাক্ষী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নিয়োগে অনিয়ম বটিয়াঘাটায় বিধবা মহিলাকে উচ্ছেদ ও জীবন নাশের হুমকি গাবুরায় ঘুর্ণিঝড় রি‌মেলে ক্ষ‌তিগ্রস্ত ৫০০ প‌রিবা‌রে ব্রতীর খাদ‌্য সহায়তা উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের মতবিনিময় কেশবপুরে নদ-নদীর পানির প্রবাহ সৃষ্টির দাবিতে স্মারকলিপি রেমাল ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্থ দলিত পরিবারের পাশে হোপ আউটরিস্ট মিনিস্ট্রি ও প্রজ্ঞা ফাউন্ডেশন নড়াইলে অপহরণের পর হত্যা,৩ জনের ফাঁসির আদেশ কেশবপুরে শিশুদের মাঝে উপহার সামগ্রী বিতরণ মঙ্গলকোট-বিদ্যানন্দকাটি ২৩তম অষ্ট প্রহরব্যাপী মহানামযজ্ঞ অনুষ্ঠান সমাপ্ত  সাতক্ষীরায় ঘের ব্যবসায়ীর ঘের হুমকির মুখে সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী কমিটের নামে মিথ্যা অপপ্রচার করায় খুলনা অনলাইন প্রেসক্লাব এর উদ্বেগ

যশোর রূপদিয়ায় সহিংসতার ঘটনার বিএনপির ৫৪ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা, আটক ২৮ জন

  • প্রকাশিত : সোমবার, ২৯ আগস্ট, ২০২২
  • ১৬২ বার শেয়ার হয়েছে

মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন তুহিন,যশোর জেলা প্রতিনিধি // যশোর রূপদিয়ায় সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপির ৫৪ জন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়েছে।গত শনিবার রাতে মামলাটি করেছেন নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সদস্য যশোর সদর উপজেলার বলরামপুর গ্রামের এসএম আকরাম হোসেনের ছেলে ফারুক হোসেন।মামলার পর শনিবার গভীর রাতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে বিএনপির ২৮ নেতাকর্মীকে আটক করেছে।তাদের মধ্যে এজাহারভুক্ত আসামি রয়েছেন সাতজন ও বাকি ২১জন তদন্তেপ্রাপ্ত আসামি।

মামলার আসামিরা হলেন,জেলা বিএনপির সদস্য গোলাম রেজা দুলু চাউলিয়ার সোহেল রানা তোতা,বিএনপি নেতা রকিবুল ইসলাম চৌধুরী মুল্লুক চান,জেল যুবদলের সভাপতি এম তমাল আহম্মেদ,যুগ্ম সম্পাদক নাজমুল হোসেন বাবলু, যশোর জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তফা আমীর ফয়সাল, হামিদপুরের শফিকুল ইসলাম, শেখহাটির রাজ্জাক, মুড়লির বিহারী রাজু,চাউলিয়াল আব্দুস সালাম বিশ্বাস,রামপুরের শিমুল হোসেন, গোপালপুরের হাসানুর রহমান শাকিল,রেজাউল ইসলাম রেজা, শ্রী পদ্দী গ্রামের আবু সাইদ, বারী নগরের বুলবুল, দক্ষিন ললিতাদাহের হাফিজুর রহমান, হাটবিলা জামতলার আফজাল হোসেন, রূপদিয়ার লাইস খান, মানিকদিহির শরীফ, ঘোপের রেজাউল ইসলাম মোল্যা, কুয়াদার সিরাজ মোল্লা, মফিজুর রহমান টিটু, রাজারহাটের লিটন হোসেন, মুড়লির মারুফ হোসেন, রাজারহাটের রাজীব হাসান, রামনগরের জহির হাসান, মোজাহার, জাহাঙ্গির, মনোহরপুরের দাউদ ইব্রাহিম, রামনগরের পারভেজ, ইমামুল, শেখহাটির বেনজির বিশ^াস, মধুরাপুরের পারভেজ, কচুয়ার আসলাম, গাইদগাছীল অহেদ মোড়ল, মনোহরপুরের আকরাম হোসেন, গাইদগাছির মশিয়ার রহমান, নরেন্দ্রপুরের ফারুকুজ্জামান রাসেল, হাটবিলার কামাল শেখ, ঘুরুলিয়ার আনোয়ার হোসেন, গাইদগাছির কাজীরাহি তনা, বলরামপুরের আব্দুল হালিম, গাইদগাছির অ্যাডভোকেট নুরুজ্জামান খান, ঘোপ জেলরোডের সৈয়দ আলী আশফাক, রূপদিয়ার মকবুল হোসেন, নরেন্দ্রপুরের জিলহাজ, গোপালপুরের ইমামুল ইসলাম তুহিন, নরেন্দ্রপুর বেলতলার সামাদ, ধোপাপাড়ার আলম, বানিয়াগাতির শফিয়ার রহমান সফি, গোপালপুরের কামরুল, বলরামপুরের জাহাঙ্গীর আলমসহ অজ্ঞাত আরো অনেককে আসামি করা হয়েছে।এজাহারভুক্ত আসামিদের মধ্যে জেলরোডের সৈয়দ আলী আশফাক, মনোহরপুরের দাউদ ইব্রাহিম, আকরাম হোসেন, গাইদগাছীর অহেদ মোড়ল, মশিয়ার রহমান,কাজী রাহি তনি, হাটবিলা জামতলার আফজাল হোসেনকে আটক করা হয়েছে। মামলার তদন্তেপ্রাপ্ত আসামি লেবুতলার আব্দুল্লাহ আলামিন বাবু, শাহাবুদ্দিন খা, কোদালিয়ার টুকু, বিল্লাল হোসেন, লেবুতলার মামুন হোসেন, ঘুরুলিয়া মধ্যপাড়ার তরিকুল ইসলাম, কিসমত নওয়াপাড়ার রাজু আহম্মেদ, চাঁচড়া ভাতুড়িয়ার আসাদুজ্জামান, হাবিবুর রহমান, আবু সাইদ বিশ্বাস, চানপাড়ার ওয়াদুদ, ওসমানপুরের শিমুল হোসেন, বানিয়াগাতির আনোয়ার হোসেন, রিয়াদ হোসেন, মুনসেফপুরের আব্দুর রহমান, নরেন্দ্রপুরের মশিয়ার রহমান, ছাতিয়ানতলার মাসুদ, চুড়ামনকাটির দেলোয়ার হোসেন ওরফে শাহ আলম, নিজাম উদ্দিন, কোদালিয়ার রবিউল ইসলাম ও ওয়াসিম মেম্বরকে আটক করা হয়েছে।

মামলায় বাদী উল্লেখ করেন,আগষ্ট মাসজুড়ে তারা বিভিন্ন এলাকায় শোকসভা, দোয়া মাহফিল ও গণভোজের আয়োজন করে আসছিলেন। এসব বিষয়ে নরেন্দ্রপুর ইউনিয়ন পরিষদের সেমিনার কক্ষে শনিবার সকাল ১১ টায় চেয়ারম্যান রাজু আহম্মেদকে নিয়ে আলোচনা করছিলেন। একই সময় পাশের ইউনিয়ন কচুয়াতে বিএনপির সমাবেশ চলছিলো। ওই সমাবেশ শেষে বিএনপির নেতাকর্মীরা বিভিন্ন বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ে রূপদিয়া বাজারের দিকে ধেয়ে আসে। পরে আসামিরা ইউনিয়ন পরিষদের সামনে কয়েকটি ককটেল মেরে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করে। ইউনিয়ন পরিষদ ভাংচুর করে। যাতে ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। পরিষদেও গেটের সামনে চেয়ারম্যান রাজুর পাজেরো গাড়ি ও একটি প্রাইভেট এবং একটি মোটরসাইকেল ভাংচুর করে। এতে সাড়ে সাত লাখ টাকার ক্ষতি হয়। এছাড়া রাজুর গাড়িতে থাকা একলাখ ৩৫ হাজার টাকা লুট করে। এসময় চেয়ারম্যান রাজুসহ অন্যরা এগিয়ে আসলে আসামিরা রামদা, লোহার রড়ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে রাজুর সাথে থাকা ১০জনকে মারপিট করে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।মামলার পর তদন্ত কর্মকর্তা নাজমুল হাসান গভীর রাতে বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে ২৮জনকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন।

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:-  ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।