1. info@www.khulnarkhobor.com : khulnarkhobor :
বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ০২:৩৫ অপরাহ্ন
বিজ্ঞপ্তি/বিজ্ঞাপন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com    বার্তা ও বাণিজ্যিক কার্যালয় : ৪৭,আপার যশোর রোড (সঙ্গীতা হোটেল ভবন) নীচতলা,খুলনা-৯১০০।ফোন:০১৭১০-২৪০৭৮৫,০১৭২১-৪২৮১৩৫। মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:- ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।
খুলনার খবর
শার্শায় স্মার্টফোনে ব‍্যাহত হচ্ছে শিক্ষার পরিবেশ,সমাজে বৃদ্ধি পাচ্ছে অসামাজিক কর্মকাণ্ড বাগেরহাটে বালু বোঝাই ট্রলির ধাক্কায় ভ্যানচালক ও তাঁর মায়ের মৃত্যু নেটওয়ার্ক আধুনিকায়নের লক্ষ্যে বাংলালিংক ও হুয়াওয়ের চুক্তি  ২৭ এপ্রিল যশোরে বিভাগীয় সভা সফল করতে খুলনায় সুজনের সভা কেন্দ্রীয় নির্দেশনা অনুযায়ী জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদকের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি লোহাগড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী তারিকুল ইসলাম উজ্জলের গণসংযোগ কেশবপুরে দুই মাদক কারবারিসহ গ্রেফতার-৩ পথচারীদের খাবার স্যালাইন ও পানি দিলেন মেয়র শেখ আ: রহমান বাগেরহাটে গভীর রাতে লাগা আগুনে ৬টি দোকান পুড়ে ছাই পাইকগাছায় বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হোসেনের দাফন সম্পন্ন পাইকগাছায় গ্রাম ডাক্তার কল্যাণ সমিতির সভা অনুষ্ঠিত কেশবপুরে ঘোড়া প্রতীকে ভোট চেয়ে গণসংযোগ উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী মফিজুর রহমান মফিজের কেশবপুর চারুপীঠ একাডেমিতে শিশু বিষয়ক কর্মকর্তার মতবিনিময় কেশবপুর উপজেলা নির্বাচনে ১৪জন প্রার্থীকে প্রতিক বরাদ্দ, প্রচারনায় নেমে পড়েছেন সকলে লোহাগড়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জনসহ ১৩ জন প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা এফডিসিতে মারামারি, সাংবাদিকসহ আহত ১০ বাগেরহাটে দোকান ভেঙে খাদে পড়ল বাস, নিহত ১ কেএমপি’র মাদক বিরোধী অভিযানে ০১ কেজি ৬৩০ গ্রাম গাঁজাসহ গ্রেফতার ৭ খুলনায় বৃষ্টির জন্য ইসলামী আন্দোলনের উদ্যোগে ইস্তেসকার নামাজ অনুষ্ঠিত শার্শায় সহকারী প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ

খুলনায় ঔষুধ কোম্পানির দৌরাত্ম্যে রোগীদের দুর্ভোগ;ভোগান্তি চরমে

  • প্রকাশিত : বুধবার, ১৭ মে, ২০২৩
  • ২৪৫ বার শেয়ার হয়েছে

নিজস্ব প্রতিনিধি || হাসপাতালে সকাল ৯টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত ঔষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের প্রবেশ নিষিদ্ধ থাকলেও মানছেন না কেউ। রোগীরা বের হলেই ব্যবস্থাপত্র নিয়ে চলে টানাহেঁচড়া। এতে বিব্রতকর অবস্থায় পড়ছেন রোগীরা।

সরেজমিনে আজ বুধবার সকাল ১১ ঘটিকায় খুলনা জেনারেল  হাসপাতালে দেখা যায়, চিকিৎসকের কক্ষ ও টিকিট কাউন্টারের সামনে ঔষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের
ভিড় লেগেই আছে।

এর বাইরেও প্রতিনিয়তই চোখে পড়ে এসব প্রতিনিধিদের নানান দৃশ্য। সরকারি এ হাসপাতালটিতে রোগীরা ডাক্তারের কক্ষ থেকে বের হওয়া মাত্রই বিভিন্ন ঔষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা তাদের পথে দাঁড় করিয়ে ব্যবস্থাপত্র টেনে নিয়ে সেটির ছবি তুলে রাখেন।
দেখা গেছে বিভিন্ন ঔষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা জরুরি বিভাগের চিকিৎসকের কক্ষের সামনে ১০-১২ জন প্রতিনিধি ভিড় করে আছেন। সেই ভিড়ে ঠেলে চিকিৎসকের কক্ষে ঢুকতে হচ্ছে রোগীদের। এভাবেই প্রতিদিন সরকারি এ হাসপাতালটিতে বিভিন্ন ঔষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের দৌরাত্ম্য বেড়েই চলছে।

ফলে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন রোগীরা।
শুধু তাই না কোম্পানির দেওয়া চাহিদা পূরণ করতে  নিজেরাই টিকিট কাউন্টার থেকে নানা নামে একজন প্রতিনিধি ৫/৬ টি টিকিট সংগ্রহ করে তৈরি করছে প্রেসক্রিপশন,সিস্টাররাও তাদের কাছে নির্দ্বিধায় টিকিট বিক্রি করছেন। মনে হচ্ছে বন্ধুত্বের বন্ধন গড়ে তুলেছেন তারা। টিকিট সংগ্রহ করে তাতে নিজেরা লিখছেন তার কোম্পানির ঔষধের নাম,দূর থেকে দেখলে মনে হবে এ যেন সরকারি কোন বড় মাপের ডাক্তার।

ঔষধ কোম্পানির প্রতিনিধি কয়েকজনের সঙ্গে আমাদের প্রতিনিধির কথা হলে তারা বলেন,হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদের ডাক্তারের সঙ্গে ভিজিট করার অনুমতি দিয়েছেন। তাই আমরা ডাক্তার ভিজিটে আসি। এর বাইরে কিছুই বলতে পারবো না। নিজেদের তৈরি প্রেসক্রিপশন এর কথা জানতে চাইলে তারা বলে আমাদের কম্পানিতে প্রতিদিন ২৫ থেকে ৩০ টি প্রেসক্রিপশন প্রদর্শন করতে হয়, তাই যখন আমাদের এই প্রেসক্রিপশন সংগ্রহ করা সম্ভব না হয় তখন এই বিকল্প পন্থা অবলম্বন করতে হয়। আর এই প্রেসক্রিপশনের টিকিট পেতে সিস্টাররা আমাদের সহযোগিতা করে।

হাসপাতালে ভর্তি এক রোগীর স্বজন বলেন, এই সকল প্রতিনিধিগণ প্রতিদিন সকাল থেকেই তারা সেখানকার বিভিন্ন ওয়ার্ডে অবাধ বিচরণ করতে থাকেন।

এ ব্যাপারে খুলনার সিভিল সার্জন ডা. সুজাত আহমেদ  বলেন,হাসপাতাল চলাকালীন তাদের ভেতরে আসার নিয়ম নেই,পাশাপাশি তিনি বিষয়টি নিয়ে জেনারেল হাসপাতালের আরএমও’র সংগে আলোচনা করতে বলেন।

বিষয়টি নিয়ে জেনারেল হাসপাতালের আর এম ও ডা. মুরাদ এর সাথে কথা হলে তিনি জানান সপ্তাহে দুদিন ভিজিটে আসতে পারবেন তারা সেটিও নির্ধারিত সময়ে। হাসপাতাল চলাকালীন তাদের ভেতরে আসার কোন নিয়ম নেই,তিনি আরও বলেন এই সকল প্রতিনিধিদের কারণে আমরা নিজেরাও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছি,এ বিষয়ে পদক্ষেপ নিতে স্থানীয় থানায় অবহিত করা আছে।তবে আগামীতে আমাদের পক্ষ থেকে আরো কঠোর পদক্ষেপ নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2022 KhulnarKhobor.com মেইল:khulnarkhobor24@gmail.com।জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা আইনে তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক নিবন্ধন আবেদিত।স্মারক নম্বর:-  ০৫.৪৪.৪৭০০.০২২.১৮.২৪২.২২-১২১।এই নিউজ পোর্টালের কোন লেখা, ছবি, অডিও, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি।